করোনার প্ৰকোপ রোধ করতে পারলো না লকডাউন, রাজ্যে এখন পর্যন্ত কত জন লোক প্লাজমা দেন করেন?

আমার আসাম: রাজ্যে দ্ৰুতগতিতে বৃদ্ধি পাচ্ছে করোনা আক্ৰান্ত লোকের সংখ্যা। প্ৰতিদিন রাজ্যে ২৫০০ থেকে ৩০০০ লোকের শরীরে কোভিড–১৯ ভাইরাস ধরা পড়ছে। তিন সপ্তাহ লকডাউন দেওয়া হয়েছিল যদিও নিয়ন্ত্ৰণ হয়নি করোনা সংক্ৰমণ। কিন্ত, এর মধ্যে বহু লোক  সুস্থ হয়ে ঘরে ফিরছেন।

অন্যান্য রাজ্যের সঙ্গে আসামে করোনা আক্ৰান্ত হয়ে স্বাস্থ্যের অবস্থা জটিল হওয়া রোগীদের দেওয়া হচ্ছে প্লাজমা। এখন পর্যন্ত প্ৰাক্তন মুখ্যমন্ত্ৰী তরুণ গগৈ, সাংসদ তপন গগৈসহ কয়েকজন রাজনৈতিক নেতার সঙ্গে চিকিৎসক ও বিভিন্ন ক্ষেত্রের লোককের শরীরে প্লাজমা দেওয়া হয়েছে।

আসামে শুক্রবার রাত্রি পর্যন্ত মুঠ ৬৮৭ জন লোকে দান করে প্লাজমা।এখন পর্যন্ত আসামে ১২৩৭ জন লোকে প্লাজমা দান করার জন্য ইচ্ছা প্ৰকাশ করেছে। ঠিক তেমনি ৭২৪ জন লোকে নিজের নাম পঞ্জীয়ন করান। জিএমসিএইচে এখন পর্যন্ত মুঠ ৯৯১ জন লোকের পরীক্ষা করার অন্তত প্লাজমা দেওয়ার জন্য অনুমতি দেওয়া হয়েছিল যদিও এখন পর্যন্ত ৪৮৭ জন লোকে প্লাজমা দান করেন।

তেজপুর চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে শুক্রবার পর্যন্ত মুঠ ৪৫ জন লোকে প্লাজমা দান করেন। আসাম চিকিৎসা মহাবিদ্যালয়ে ৪১ জন লোকে প্লাজমা দান করেন। যোরহাট চিকিৎসা মহাবিদ্যালযে প্লাজমা দান করা লোকের সংখ্যা ৪৩ জন। অন্যদিকে, শিলচর চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় হাস্পতালে ৭১ জন লোকে দান করে প্লাজমা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *