বেঁচে থাকবে কি নগাঁও ও কাছাড় কাগজ কল, ১৪ সেপ্টেম্বর হবে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত!

আমার আসাম: আগামী১৪ সেপ্টেম্বর ভাগ্য নিৰ্ণয় হবে আসামের দুইটি বৃহৎ উদ্যোগ নগাঁও এবং কাছাড় কাগজ কলের৷ কারণ NCLT তে বিচারাধীন হয়ে থাকা কাগজ কলের শেষ শুনানি হবে ১৪ সেপ্টেম্বর৷

যদি সেই শুনানির পূর্বে সরকার কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ না করে তাহলে কাগজ কল দুইটি ধ্বংস হয়ে যেতে পারে।ও তার পর NCLT–এ দেউলীয়া ঘোষণা করে কম দামে বিক্ৰী করা হতে পারে কল দুইটির বৃহৎ সম্পদ৷ যা নিয়ে ক্ষোভিত হয়ে পড়ছে নগাঁও কাগজ কল ও কাছার কাগজ কলের কৰ্মচারীসকল৷

তাই ১৪ সেপ্টেম্বরের পূৰ্বে সরকার কল দুইটির প্ৰতি সদিচ্ছা প্ৰকাশ করার আহ্বান জনাছেন কর্মচারী সকলে৷ যদি কোন কারণে কল দুইটি বিক্ৰী করে তাহলে রক্ত দিয়ে কল দুইটি রক্ষা করার চেষ্টা করবে ও বিক্রিতে বাধা প্ৰদান করবে বলে জানায় কাগজ নিগম কৰ্মী ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনন্দ বরদলৈ৷

অন্যদিকে, কেরালার অবিজেপি সরকার বন্ধ হয়ে থাকা হিন্দুস্থান নিউজপ্ৰিণ্ট উদ্যোগ রাজ্য সরকার নিজ প্ৰচেষ্টায় পুনরুজ্জীবিত করতে পারলে আসামে বিজেপি সরকার থাকার পরও কেন বৃহৎ উদ্যোগ দুইটি পুনরুজ্জীবিত করায় জন্য সরকার সদিচ্ছা প্ৰকাশ করে নি বলে ও প্রশ্ন করে কর্মচারী সকলে।

এই বিষয়ে বিরোধী দলপতি দেবব্ৰত শইকীয়া মুখ্যমন্ত্ৰী সৰ্বানন্দ সনওয়ালের কাছে এক পত্ৰ প্ৰেরণ করেন বলে জানান নগাঁও কাগজ কলের কৰ্মচারীরা৷

উল্লেখ্য যে বিগত প্ৰায় ৪৪ মাস ধরে প্ৰাপ্য বেতন থেকে বঞ্চিত আছে নগাঁও কাগজ কল ও কাছার কাগজ কোলের কৰ্মচারীসকল৷ পয়সার অভাবে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু হয় প্রায় ৭০ জন কর্মচারী ও তাদের পরিবারের লোকের৷ তার মধ্যে তিনজন কৰ্মচারী আৰ্থিক সমস্যার জন্য আত্মহত্যার পথ গ্রহণ করেন৷বহিঃরাজ্যে পড়াশোনা জন্য যাওয়া কর্মচারী সকলের সন্তানরা পয়সার অভাবে হয় পড়া শোনা ছাড়তে হয়েছে নতুবা ঘরে ফিরে আসতে হয়েছে।
সরকার সদিচ্ছা প্ৰকাশ করলে দেউলীয়া ঘোষণা থেকে রক্ষা করতে পারবে বৃহৎ উদ্যোগ দুটিকে৷ পরবৰ্তী সময় কল দুইটি উদ্ধার ও পুনরুজ্জীবিত করার ক্ষেত্রে রাজ্য ও কেন্দ্ৰীয় সরকার কি ব্যবস্থা গ্ৰহণ করে তা লক্ষণীয় হবে৷

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *