নিলামবাজার ইলেকট্রিক অফিস ঘেরাও দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেসের

আমার আসাম প্রতিবেদন: ৫, অক্টোবর, সোমবার

ভেঙ্গে পড়া বিদ্যুৎ সমষ্য সহ প্রচুর অনিয়মের অভিযোগ তুলে বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে প্রতিবাদে গর্জে উঠলো দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেস। সোমবার নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্যদ সামনে প্রায় ২ ঘণ্টা অবস্থান ধর্মষট কার্যসূচি পালন করেন দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেস সভাপতি মছরুল করিম খান, নিলামবাজার জেলাপরিষদ সদস্যা আফরোজা পারবিন, গান্ধাই ব্রাম্মন সাষন জেলা পরিষদ সদস্য সঙ্কর মালাকার, ফকিরবাজার জেলা পরিষদ সদস্যার প্রতিনিধি আছান চৌধুরী সহ দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেস সদস্যরা।

দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেস কমিটির সভাপতি মছরুল খানের নেতৃত্বে এদিন সকাল ১১টা নাগাদ প্রায় শতাধিক দলীয় কর্মকর্তা নিলামবাজার বিদ্যুৎ কার্যালয়ের সামনে জড়ো হন। প্রথমে নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্যদ অফিস ঘেরাও করেন নিলামবাজার জেলা পরিষদ সদস্য আফরুজা পারবিন, যুব কংগ্রেস সভাপতি মছরুল খান, ভাইস চেয়ারম্যান আহমদ আলি নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্ষদের এর সামনে অনেক অনিয়মের তথ্য তুলে ধরেন, দক্ষিণ করিমগঞ্জের আঙ্গুরা জিপির শিলুয়া গ্রানে অনেক পরিবারের কাছে বিদ্যুৎ বিলের নোটিশ পাঠানো হয় কিন্তু তাদের বাড়ির আশেপাশে কোন বিদ্যুতের লাইন বা বিদ্যুতের কানেকশন নেই, মিটারের রিডিং না নিয়ে কি করে বিদ্যুতের বিল পটানো হয়? সাধারণ একটি পরিবারে তিনশো চারশো ইউনিটের বিল কি করে আসে? এ বিষয়ে জানতে চাইলে নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্ষদের এসডিই কল্লোল দেবরায় কোন সদুত্তর দিতে পারেনি! কোনো সদুত্তর না পেয়ে নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্ষদ অফিসের বারান্দায় ধরনায় বসেন নিলামবাজার জেলা পরিষদ সদস্যা আফরোজা পারবিন আতিকুর রহমান, গান্ধাই ব্রাহ্মণ শাসন জেলা পরিষদ সদস্য সঙ্কর মালাকার, ফকিরবাজার জেলা পরিষদ সদস্যার প্রতিনিধি আছান চৌধুরী, করিমগঞ্জ জেলা কংগ্রেসের মাইনরিটি বাইছ-চেয়ারমেন আহমদ আলি, দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুব কংগ্রেস সভাপতি মছরুল করিম খান, যুব কংগ্রেস উপ-সভাপতি রুহেল আহমদ, তাহির চৌধুরী, কমরুল ইসলাম খান, সৈয়দ মছরুর, সহিদ আহমদ, উবাইদ উল্লা, দিলওয়ার হুসেন, নাজিম উদ্দিন, মিফতাদ চৌধুরী, জাহাঙ্গীর আলম, আবু তাহির, নজমুল ইসলাম, সাহিন আহমদ সহ দক্ষিণ করিমগঞ্জ যুবকংগ্রেস কর্মকর্তারা ধর্নায় বসে প্রতিবাদকারীরা।

২৪ ঘন্টা বিদ্যুৎ দেওয়ার নামে প্রতিশ্রুতি ভঙ্গ কারি বিজেপি সরকার, এপিডিসিএল মুর্দাবাদ, বিদ্যুৎ মন্ত্রী মুর্দাবাদ, বিনা কানেকশনে বিদ্যুৎ বিলের নোটিশ পাঠানো বিভাগীয় কর্তৃপক্ষ নিলামবাজার এপিডিসিএল মুর্দাবাদ এইসব ধ্বনি দিয়ে মুর্দাবাদ জানান।।
তারপর নিলামবাজার বিদ্যুৎ পর্ষদের এসডিই কল্লোল দেবরায় আন্দোলনকারীদের সামনে আসেন এবং বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের ভুলের জন্য এরকম হয়েছে বলে তিনি স্বীকার করেন, অনিয়মিত বিল, রিডিং না নিয়ে বিলের কাগজ পাঠানো, বিদ্যুৎ কালেকশন বিহীন বিদ্যুতের বিল পাঠানো এ বিষয়ে তিনি তদন্ত করবেন বলে আস্বস্ত করেন, এবং আগামী দিনে বিভাগীয় কর্তৃপক্ষ দ্বারা এরকম ভুল আর হবে না বলে তিনি আশ্বস্ত করেন এবং আন্দোলন থেকে উঠার জন্য তিনি অনুরোধ জানান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *