রিক্সাচালক আহমদ আলির স্বপ্ন সাকার হতে চলেছে, আহমদ আলি হাইস্কুল উচ্ছমাধ্যমিকে উন্নীত

আমার আসাম প্রতিবেদন,২৯ নভেম্বর
এইচ এম আমির হোসেন, করিমগঞ্জ

বহু চর্চিত ব্যক্তিত্ব একদা রিক্সাচালক হাজি আহমদ আলির মহাবিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন বাস্তবায়ন হওয়ার পথে। স্বপ্নটা সেই দীর্ঘকাল আগের। তখন এই স্বপ্ন শুধু কাল্পনিক ছিল। পথ চলতে চলতে এই স্বপ্ন অনেক সময় বিরাট আঘাত দিয়ে ফেলত। প্রধানমন্ত্রীর মনকি বাতে প্রশংসিত হওয়ার পর এই স্বপ্ন অনেকটা বেড়ে যায় বলেন ন’টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা ‘রিক্সাচালক’ হাজি আহমদ আলি। এক সাক্ষাৎকারে প্রায় ৮৫ বছর বয়সি আহমদ আলি আনন্দের সঙ্গে বলেন, অসমের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্তবিশ্ব শর্মা উল্লেখযোগ্য কয়েকটি মাধ্যমিক স্কুলের নামের তালিকা প্রস্তুত করেছেন, উচ্ছমাধ্যমিকে উন্নীত করে দেওয়ার জন্য। এই তালিকায় পাথারকান্দির প্রত্যন্ত মধুরবন্দ গ্রামে অবস্থিত আহমদ আলি হাইস্কুলের নামও রয়েছে। স্কুলের নিজস্ব সফলতা এবং প্রধানমন্ত্রীর মনকি বাতের প্রশংসাকে মর্যাদা দিতে গিয়ে পিছপড়া এলাকার এই স্কুলের নাম অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। শিক্ষামন্ত্রী স্বয়ং ফোনযোগে তাকে এই কথা জানিয়েছেন, বলেন আহমদ আলি। সম্প্রতি করিমগঞ্জ সরকারি উচ্চতর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে উপস্থিত হয়ে বিভাগীয় কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে স্কুলের প্রয়োজনীয় কম্পিউটার সামগ্রী গ্রহণ করেন আহমদ আলি। সেখানে উপস্থিত ছিলেন উচ্চমাধ্যমিকে উন্নীত হওয়া স্কুলের প্রধান শিক্ষক শিক্ষাবিদ আব্দুল বাছিত ও বরাক উপত্যকা সর্বধর্ম সমন্বয় সভা’র কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক এইচ এম আমির হোসেন। রিক্সাচালক আহমদ আলি দায়িত্বশীল ও কর্মতৎপর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির প্রতি আন্তরিক কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করতে না ভুললেও সঙ্গে কিছুটা ক্ষোভও ঝাড়েন। বলেন, মনকি বাতের আলোচনা পত্র-পত্রিকায় বা নেট দুনিয়ায় ভাইরাল হওয়ার সময়কালে প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে তেরো লক্ষ টাকা পুরস্কার পাওয়ার কথা হাওয়ায় ভাসলেও বাস্তবে তা প্রতিফলিত হয় নি। অর্থ রাশিগুলি পেয়ে গেলে স্কুলগুলির উন্নতিকল্পে কাজে লাগাবেন বলেন উদারমনা শিক্ষাপ্রেমী হাজি আহমদ আলি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *